নবীনগরে কাটা পা হাতে নিয়ে একদল মানুষের আনন্দ মিছিল ও উল্লাস - pratidinkhobor24.com

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 12 April 2020

নবীনগরে কাটা পা হাতে নিয়ে একদল মানুষের আনন্দ মিছিল ও উল্লাস



নিউজ ডেস্ক ঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে কাটা পা হাতে নিয়ে একদল মানুষকে আনন্দ মিছিল ও উল্লাস করতে দেখা গেছে। উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের থানাকান্দি গ্রামে এই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে। বিবাদমান দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ চলাকালে প্রতিপক্ষের একজনের পা কেটে হাতে নিয়ে অন্য পক্ষের লোকজন এ উল্লাস ও 'আনন্দ মিছিল' করে। এ সময় একজনকে 'শুধু হের পাওডা আনলি ক্যান, হের কাল্লাডা (মাথা) নিয়া আইলি না ক্যান'- বলেও চিৎকার করতে শোনা গেছে।

আজ রবিবার (১২ এপ্রিল) সকালে থানাকান্দি গ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষের পর মোবাইলে ধারণ করা একটি ভিডিও ফুটেজে একদল মানুষকে পশুর মতো এমন হিংস্র আচরণ করতে দেখা গেছে। সংঘর্ষের ঘটনায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উভয় পক্ষের ২২ জন দাঙ্গাবাজকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তবে আবারও সংঘর্ষের আশংকায় এলাকায় বর্তমানে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, এলাকায় গ্রাম্য আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান ও এলাকার সর্দার আবু কাউছার মোল্লার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিলো। ইতিমধ্যে এই দুই গ্রুপে একাধিকবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে বহু হতাহতার ঘটনাও ঘটেছে। এসব বিষয় নিয়ে এলাকায় আগামী কাল সোমবার (১৩ এপ্রিল) সকাল ১০টায় পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে উভয়পক্ষের লোকজনকে নিয়ে একটি জরুরী বৈঠক হওয়ার কথা ছিলো।

কিন্তু এর আগেই আজ দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে ভয়ানক এক সংঘর্ষে প্রায় অর্ধশত লোক আহত হন। এ সময় একাধিক বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনাও ঘটে। সংঘর্ষ চলাকালে কাউছার মোল্লার পক্ষের লোকজন প্রতিপক্ষ চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমানের পক্ষের মোবারক মিয়া (৪৫) নামের এক ব্যক্তির একটি পা কেটে হাতে নিয়ে গ্রামে উল্লাস করতে দেখা যায়।

তবে স্থানীয় জানান, আগামী কাল পু্লিশের উপস্থিতিতে যেই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকটা হওয়ার কথা ছিলো, সেটি বানচাল করতেই পরিকল্পিতভাবে এই সংঘর্ষ হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, 'পরিস্থিতি এখন খুবই খারাপ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) মকবুল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সংঘর্ষের পর ২২ জনকে আটক করা হয়েছে। আরও দাঙ্গাবাজকে ধরা হচ্ছে। পরবর্তী যেকোনো ঘটনা এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

No comments:

Post a comment

Post Bottom Ad

Pages