রামগঞ্জে ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো পার হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী - pratidinkhobor24.com

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Friday, 11 June 2021

রামগঞ্জে ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো পার হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী



 রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার রতনপুর এলাকায় ওয়াপদা খালের উপর নির্মিত সংস্কার বিহীন লোহার এঙ্গেলের সাঁকোটি এলাকাবাসীর জন্য এখন ‘মরণ ফাঁদে’ পরিণত হয়েছে। রতনপুরবাসীর যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম এই সাঁকোটি। প্রতিদিন ৫ শতাধিক স্কুল শিক্ষার্থীসহ হাজারো মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাঁকোটি পারাপার করছে। এরই মধ্যে সাঁকো থেকে পড়ে অনেকেরই হাত-পা ভেঙেছে। সাঁকো পারাপারে শিক্ষার্থীসহ জনসাধারণের দুর্ভোগ দিন দিন বেড়েই চলেছে। যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। 

সুত্রে জানাযায়, রামগঞ্জ থানার সন্নিকটে ওয়াপদা খালের অপর পাড় পৌরসভার রতনপুর ওয়ার্ডের প্রায় সহস্রাধিক পরিবার বসবাস করছে। এ পরিবারগুলো শহরে যাতায়াতের সহজ ব্যবস্থা হলো এ সাঁকো । প্রায় ৭ বছর আগে এলাকাবাসীর নিজ খরছে লোহার এঙ্গেল দিয়ে সাঁকোটি নির্মাণ করেছে। নির্মাণের দুই বছর না যেতেই সাঁকোটির লোহার চালি নষ্ট হয়ে যায়। কোনো রকম জোড়াতালি দিয়ে যাতায়াতের ব্যবস্থা করে এলাকার লোকজন। সাঁকো দিয়ে স্টেশন মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মর্নিং সান কিন্টারগাটেন স্কুল, রামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়, রামগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়সহ আবাশিক/অনাবাশিক মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষার্থী, অভিবাবকরা প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার স্বীকার  হচ্ছে। বিশেষ করে অসুস্থ রোগী এবং গর্ববতী মায়েদের নিয়ে বিপাকে পড়তে হয়।

রামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর শিক্ষার্থী তানজিলা মনির হাফছা ও উমাইরা ইসলাম জানান, ৬ষ্ঠ শ্রেনী থেকে অল্প সময়ে স্কুলে যাওয়ার জন্য এ সাঁকোটি ব্যবহার করতে হয়। কিন্ত লোহার এঙ্গেলগুলো ভেঙ্গে যাওয়ায় কয়েকবার দূর্ঘটনার স্বীকার হয়ে মারাত্বক আহত হয়েছি।
 মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতার  কারনে দেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে রুপান্তরিত হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে এখানে একটি ব্রিজ করে দিলে শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী উপকৃত হবে।

রামগঞ্জ মডেল কলেজের সহকারি অধ্যপক সমর দাশ ও রামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক জসিম উদ্দিন সবার কাছে আকুল আবেদন করে জানান. জনসাধারণের যাতায়াতের সুবিধার্থে জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানটিতে একটি পাকা ব্রিজ নির্মান করে দিলে জসদূর্ভোগ লাগব হবে। এখানে কমপক্ষে একটি পায়েচলা ব্রিজ করে দিলেও এলাকাবাসীর দুঃখ্য দুর হবে।  

রামগঞ্জ প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা দিলীপ দে জানান, ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদফতর থেকে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া যেত। কিন্ত দৈর্ঘ্য বেশি হওয়ায় ব্রিজ করা কঠিন হবে।

এ ব্যাপারে রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাপ্তি চাকমা জানান, ওয়াপদা সড়কটি এলজিইডির দায়িত্বে। তাই ওয়াপদা খালের উপর একটি পাকা ব্রিজ নির্মাণের জন্য তাদের কাছে চাহিদা পাঠানো হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages