ছাত্রদল কর্মী এখন কেন্দ্রীয় আ”লীগ নেতা রামগঞ্জ তৃনমুল আ”লীগে ক্ষোভ - pratidinkhobor24.com

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Tuesday, 20 April 2021

ছাত্রদল কর্মী এখন কেন্দ্রীয় আ”লীগ নেতা রামগঞ্জ তৃনমুল আ”লীগে ক্ষোভ



নিজস্ব প্রতিবেদকঃ লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে কামরুজ্জামান শুভ নামে এক ছাত্রদল কর্মী মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে স্থানীয় আওয়ামীলীগের মাঝে ক্ষোভ ও মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

সুত্রে জানাজায়, উপজেলার কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুর রহমান বাচ্ছুর ছেলে কামরুজ্জামান শুভ নিজে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন এবং তার পরিবারের সবাই বিএনপির রাজনীতি করেন। কয়েকমাস পূর্বে শুভ দল পাল্টিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে অনপ্রবেশের চেষ্টা চালায়। কিন্ত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতারা তাকে পাত্তা না দেওয়ায় সে তার ব্যবসার সুবিধার্থে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদককে ম্যানেজ করে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ০১ মার্চ ২০২১ ইং কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য পদটি নেন। এরপর শুভ এলাকায় দান-অনুদান দেওয়ার মাধ্যমে পেষ্টন বেনার করে নিজেকে আওয়ামীলীগ নেতা পরিচয় দিলেই স্থানীয় আওয়ামীলীগের মাঝে শুরু হয় ক্ষোভ আর মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ জাকির হোসেন মোল্যা জানান, শুভ আমাদের কাছে অনেকবার এসেছেন যে কোন কিছুর বিনিময়ে তাকে আওয়ামীলীগের সদস্য করার জন্য। আমরা জানি সে অতিতে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল। তার বাবা ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি। তার পরিবারের লোকজন বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। সে কখনও আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে নাই, তাই আমরা তাকে সদস্য করতে পারি নাই। হঠাৎ দেখি প্রেষ্টন বেনার দিয়ে নিজেকে  কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ নেতা প্রচার করতে। এটা আমাদের জন্য খুবই লজ্জার এবং দুঃখ্যজনক।

উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আতিকুর রহমান রিপন জানান, আমি উপজেলার ছাত্রদলের সভাপতি থাকা কালিন সময় কামরুজ্জামান শুভ ইউনিয়ন ছাত্রদলের কর্মী হিসেবে থাকতে পারে। তার বাবা এখনও আমাদের দলের কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি । এখন তার টাকাপয়সা হওয়ায় ছাত্রলীগের সাথে চলাপেরা করে।

পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বেলাল আহম্মেদ, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সৈকত মাহমুদ সামছু, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি কামরুল হাসান ফায়সাল মাল, সাধারন সম্পাদক মেহেদী হাসান শুভসহ অনেকই ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শাসনামলে আওয়ামী পরিবারগুলোর ওপর পাশবিক নির্যাতনসহ নানাভাবে হয়রানি করা লোকেরা আওয়ামীলীগের কমিটিতে স্থান পাওয়া মেনে নেওয়া যায় না।এতে যারা জেলজুলুম হুলিয়া মাথায় নিয়ে পালিয়ে থেকেছে, নানা নির্যাতনের শিকার হয়েছে এ সব ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতারা বাদ পড়ে যায়। তারা শুভকে বহিস্কারের দাবি করেন।অন্যথায় তৃনমুল আওয়ামীলীগ তার বহিস্কারের দাবিতে মানববন্ধনসহ কর্মসুচি দিবেন।

কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য কামরুজ্জামান শুভ জানান, আমার বাবা এক সময় বিএনপির সমর্থক ছিল এটা কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ জানে।  বর্তমানে তিনি বিএনপির কমিটিতে আছেন কিনা এটা আমার জানা নাই। আমি ২০১১ইং সালে ছাত্রলীগের ডোনার ছিলাম। কেন্দ্র সকল বিষয়ে যাচাই বাছাই করে আমাকে সদস্য করেছে।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম রুহুল আমিন জানান, অনুপ্রবেশকারীরা দলের জন্য অশুভ সংকেত। যেই লোক কখনও আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠনের সাথে রাজনীতি করে নাই। যার অতিত বিএনপি সে কিভাবে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য হয়। আমাদেরকে কেউ একটু জিজ্ঞাসাও করলো না। এটা খুবই দুঃখ্যজনক।

No comments:

Post a comment

Post Bottom Ad

Pages