নাগরপুরে শখ থেকে গরুর খামার গড়ে তুলেছেন অাবিদ এগ্রোর মালিক শহিদ - pratidinkhobor24.com

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Monday, 27 July 2020

নাগরপুরে শখ থেকে গরুর খামার গড়ে তুলেছেন অাবিদ এগ্রোর মালিক শহিদ



মোঃ আব্দুর রাজ্জাক রাজা নাগরপুর টাংগাইল প্রতিনিধি
টাংগাইলের নাগরপুরে শখ থেকে গরুর খামার গড়ে তুলেছেন আবিদ এগ্রোর মালিক শহিদুর রহমান শহিদ।খামারের নাম দিয়েছেন আবিদ এগ্রো ফার্ম।বর্তমানে খামারটিতে দেশী শংকর জাত মিলিয়ে প্রায় ২২ টি গরু রয়েছে। আসন্ন কুরবানির ঈদকে সামনে রেখে খামারটিতে প্রস্তুত করা হয়েছে  চোখ জুড়ানো ৭ টি ষাঁড় গরু। খামারটির মালিক শহিদ জানান,আমি সম্পূর্ণ প্রাকৃতিকভাবে দেশীয় পদ্ধতিতে ষাঁড় গুলোকে মোটাতাজা করেছি।আসন্ন ঈদে গরুগুলো ঢাকায় বিক্রি করব।তবে বর্তমানে করোনা ভাইরাস ও বন্যার কারনে তিনি আশানুরূপ দাম না পাওয়ার আশংকা করছেন।
খামারির মালিক শহিদ গরুর পরিচর্যায় নিয়োগ দেন ৪ জন কর্মচারী। গবাদিপশু লালন-পালন বিষয়ে কর্মচারিদের নূন্যতম দক্ষতার বিষয়টিও নিশ্চিত করেন। উপজেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগের লোকজন দিয়ে মাঝে মাঝে খামার পরিদর্শনের ব্যবস্থা করেন। প্রতি মাসে গরুর স্বাস্থ্য ও ওজন পরীক্ষা করেন। সবমিলিয়ে উপযুক্ত পরিচর্যায় এবারও প্রস্তুত হয়েছে সুস্থ্য সবল কোরবানীর পশু। নাদুস-নুদুস চেহারার প্রতিটি ষাঁড় গরুর ওজন দাঁড়িয়েছে ৪ থেকে ৫ মণ।এসব গরুর আনুমানিক মূল্য ১ লাখ থেকে ২ লাখ টাকা পর্যন্ত হবে।

শুধু ষাঁড় নয় গাভী পালনের পরিকল্পনাও রয়েছে জানিয়েছেন খামারী শহিদ। তিনি আরও বলেন, গবাদি পশু লালন পালনকারীদের সরকারিভাবে প্রশিক্ষণ দেয়া প্রয়োজন। প্রাণিসম্পদ বিভাগের লোকজন বাড়ি বাড়ি গিয়ে গবাদি পশু পালনে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করলে মানুষ লাভবান হবে। 

উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ রফিকুল ইসলাম  জানিয়েছেন, দক্ষতা বৃদ্ধিতে খামার মালিক-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। পর্যয়ক্রমে সবাই প্রশিক্ষণের আওতায় আসবে।এছাড়া স্বেচ্ছাসেবী এ.আই টেকনিশিয়ানগণও নিজ নিজ এলাকায় খামারীদের দেখভাল করছেন।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad

Pages